দিল্লিতে তাকালেই চোখ পুড়ছে, নিঃশ্বাসে কষ্ট

ভারতের রাজধানী দিল্লিতে বায়ুদূষণের মাত্রা সহনীয় পর্যায়ে আসছে না। কখনও থাকছে ‘বিপজ্জনক’ পর্যায়ে, কখনও হয়ে উঠছে ‘অতি বিপজ্জনক’।

ধোঁয়ায় চোখ পুড়ছে, শ্বাস-প্রশ্বাসে কষ্ট হচ্ছে। দূষণ নিয়ন্ত্রণে সোমবার থেকে দিল্লিতে গাড়ি চলাচলে জোড় ও বিজোড় নম্বর পদ্ধতি চালু হয়েছে।

এদিন দিল্লি বিমানবন্দরে নামতে পারেনি অনেক বিমান। বিশ্ব-ঐতিহ্য তাজমহলে বসানো হয়েছে বায়ু পরিশোধক ভ্যান। আগেই বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।

এ অবস্থায় দূষণ রোধে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারকে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির সর্বোচ্চ আদালত।

টাইমস অব ইন্ডিয়া ও এএফপি বলছে, কয়েকদিন ধরে দিল্লির বাতাসের গুণগত মানের সূচক (একিউআই) ওঠানামা করছে। কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের প্রতিবেদন অনুযায়ী, সোমবার সকাল ৭টায় একিউআই গড় ছিল ৭০৮, যা দূষণের পরিভাষায় ‘অতি বিপজ্জনক’।

সাড়ে ৭টার পর থেকে পরিস্থিতির সামান্য উন্নতি হয়। সকাল ১০টায় দিল্লির বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় একিউআই ছিল ৪৫০-এর উপরে। এটাও দূষণের বিপজ্জনক বিভাগে পড়ে।

আগের দিন রাজধানীর একাধিক জায়গায় একিউআই ৯৯৯ ছাড়িয়ে গিয়েছিল। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল এক টুইট বার্তায় বলেন, ‘চারদিকে ধোঁয়া। শিশু, তরুণ, যুবক, বৃদ্ধ-সবার শ্বাস-প্রশ্বাসে কষ্ট হচ্ছে। চোখ পুড়ে যাচ্ছে। দূষণ পরিস্থিতি খুবই ভয়াবহ।’

দূষণ পরিস্থিতির মোকাবেলায় সোমবার সকাল ৮টা থেকেই যান চলাচলে ‘জোড়-বিজোড়’ নিয়ম চালু হয়েছে। যেসব গাড়ির নম্বরের শেষ সংখ্যা বিজোড়, সেগুলোকে ৪, ৬, ৮, ১২ ও ১৪ নভেম্বর রাস্তায় বের হতে নিষেধ করা হয়েছে। জোড় নম্বরের গাড়িগুলোকে ৫, ৭, ৯, ১১, ১৩ ও ১৫ নভেম্বরে রাস্তায় নামানো যাবে না বলে নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য সরকার।

যাত্রীদের চাপ সামলাতে এই দিনগুলোয় ৬১টি অতিরিক্ত ট্রেন চালাবে দিল্লি মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ। রাস্তায় ৫০০টি অতিরিক্ত বাস নামানো হয়েছে। এ দিন সকালে দিল্লি বিমানবন্দরে দৃশ্যমানতা কম থাকায় ৩৭টি বিমানের পথ ঘুরিয়ে দেয়া হয়েছে। দেরিতে ছেড়েছে অনেক বিমান।

কেজরিওয়ালও এদিন তার সরকারি গাড়ি ব্যবহার করেননি। জোড়-বিজোড় নিয়ম মেনেই ভাড়া গাড়িতে করে দফতরে যান। রাজ্যের উপমুখ্যমন্ত্রী মনীশ সিসৌদিয়া কাজে যান সাইকেল চালিয়ে।

অপরদিকে নিয়ম লঙ্ঘন করে বিজোড় নম্বরের গাড়ি নিয়ে রাস্তায় বেরিয়ে চার হাজার রুপি জরিমানা দিয়েছেন বিজেপির রাজ্যসভার সদস্য বিজয় গয়াল।

এনডিটিভি বলছে, বায়ুদূষণের হাত থেকে মোগল স্থাপত্য তাজমহলকে বাঁচাতে এয়ার পিউরিফায়ার (বায়ু পরিশোধক) বসানো হয়েছে।