শ্রীলঙ্কার গ্রামাঞ্চলে রাতজুড়ে কার হাহাকার শোনা যায়?

0
30

শ্রীলঙ্কার গ্রামাঞ্চলে গভীর রাতে শোনা যায় এক অরুন্তুদ হাহাকারের মতো আওয়াজ। হাড় হিম করে দেওয়া সেই আওয়াজের উৎস নাকি এক রহস্যময় পাখি। স্থানীয়দের বিশ্বাস, ‘উলামা’ নামের সেই পাখি আসলে শয়তানের দোসর। তার ডাক বয়ে আনে মৃত্যুকে, মহামারীকে। এই ব্যাপারে আয়ারল্যান্ডের লোককথার ‘ব্যানশি’-দের সঙ্গে তাদের আশ্চর্য মিল। কিন্তু তার দেখা আবহমানে পেয়েছেন খুবই কম লোক। জনশ্রুতি অনুসারে, তার চেহারা অতি ভয়ঙ্কর। বিশালাকৃতির সেই পাখির চোখ আগুনের ভাঁটার মতো, তার মাথায় নাকি শিংও রয়েছে।







শ্রীলঙ্কার কিংবদন্তি অনুসারে, বহুকাল আগে এক পরিবারে কর্তা সন্দেহ করেন তাঁর সন্তানের পিতা তিনি নন। সন্দেহের বশে তিনি শেষ পর্যন্ত ছেলেকে হত্যা করে তার মাংস রান্না করেন। সেই মাংস তিনি স্ত্রীকে খেতে দেন। স্ত্রী সেই মাংসর মধ্যে ছেলের আঙুল দেখে চিনতে পারেন। রাগে-দুঃখে স্ত্রী বনে গিয়ে আত্মহত্যা করেন। তাঁর আত্মা থেকেই জন্ম নয় সেই পাখি। আর সে কারণেই সেই পাখির ডাক অরুন্তুদ হাহাকারের মতো।







কিংবদন্তির প্রাণীদের পিছনে সক্রিয় থাকে কোনও না কোনও বাস্তব ভিত্তি— এই সত্যে বিশ্বাস রাখেন ‘ক্রিপ্টোজুলজি’-র গবেষকরা। বিশ্বের অন্যতম মুখ্য ক্রিপ্টোজুলজিস্ট আর এল স্টিল দীর্ঘকাল ধরে পড়ে রয়েছেন এই পাখির রহস্য উদ্ঘাটনের পিছনে। তিনি সম্প্রতি জানিয়েছেন, এই আওয়াজের সঙ্গে মানুষের চিৎকারের মিল রয়েছে। শ্রীলঙ্কার পাখি ‘ঈগল-আউল’-এর ডাক অনেকটা কাছাকাছি। রাতেভিতে তার ডাকই কি হাহাকারের মতো শোনায়? তার সঙ্গে যুক্ত হয় মানুষের কল্পনা, হাজার হাজার বছরের বিশ্বাস আর মনের গহীনে থেকে যাওয়া ভয়।