১৬ টি নিখুঁত সময়যুক্ত ছবি যা দেখলে আপনি হেসে গড়াগড়ি খাবেন, #৮ নাম্বার টি দারুন মজার…

0
162

কেউ যদি প্রশ্ন করে, ফটোগ্রাফি কি? আর তার উত্তরে যদি বলা হয় যে ফটোগ্রাফি হল এক খুবই উচ্চ পর্যায়ের দক্ষতা বা কুশলতা তাহলে ভূল কিছু হবে না। একজন পেশাদার ফটোগ্রাফারের ভালভাবে ছবি তোলা শিখতে কয়েক বছর লেগে যায়।







এটা যতটা দক্ষতা বা কুশলতার ব্যাপার ঠিক ততটাই শিল্পও বটে। বিশেষ করে যখন নিখুঁত সময়ের কথা বলা হয়। কিন্তু অনেক সময়ে এই নিখুঁত সময়ের ছবি এক হাস্যকর ছবি তৈরি করে।







তাই Beyond Kolkata এখানে এইরকম ১৬ টি ছবি নিয়ে এসেছে যে ছবিগুলি একবারে নিখুঁত সময়ে তোলা এবং যেগুলোকে দেখে আপনি হেঁসে গড়িয়ে পড়বেন। তাহলে আপনি কি এই নিখুঁত ছবিগুলিকে দেখতে চান? আপনাকে শুধু নিচে নামাতে হবে।

১. একটু উঁকি

আপনি যেরকম এই ছবির নিখুঁত সময়জ্ঞান দেখে অবাক হচ্ছেন, আমিও অবাক হচ্ছি। আমার প্রশ্ন হচ্ছে, আমরা কি ফটোগ্রাফারকে দোষ দিতে পারি?







২. এতে নিশ্চয় খুব লাগে।

এটা একটা জুডোর প্যাঁচ এবং আমরা এই প্যাঁচটাকে হাজার বছর ধরে চেষ্টা করলেও রপ্ত করতে পারব না। আমরা এটাও আশা করি আমরা যেন জীবনে এই প্যাঁচে না পরি।







৩. ওটা শুধুমাত্র একটা গোড়ালি।

হে ভগবান! আমরা প্রায় অজ্ঞান হয়ে যাচ্ছিলাম। কিন্তু তখন আমরা আবিষ্কার করলাম যে এটা গোড়ালি ছাড়া অন্য কিছু নয়।

৪. অসামঞ্জস্যপূর্ণ

মাথাটা শরীরের তুলনায় অনেক বড় লাগছে। কিন্তু আমার প্রশ্ন সেটা নয় আমার প্রশ্ন হল যে এই মেয়েগুলো কি অনুকরণ করার







৫. জলে জ্যাঁপ।

সবথেকে বড় অনুশোচনা ৩..২..১। অন্য দিকে ফটোগ্রাফারটি এই লোকটির সবথেকে নিখুঁত সময়ের ছবি তুলেছে।







৬. অপেক্ষার খেলা।

যখন আপনার ক্রাস আপনাকে ফোনে কোন উত্তর দেয় না। আমার মনে হয় আমরা সবাই জীবনে অন্তত একবার এরকম অভিজ্ঞতা করিছি।







৭. গলায় গলায়।

আমরা সবাই গলায় গলায় এর মানে জানি…..কিন্তু এখানে এই ছবিতে কে কার গলা জড়িয়ে আছে বুঝতে পারছেন কি?







৮. অত্যাধিক গরম।

যখন আমরা কাউকে দারুণ হট বলি, সেটা আক্ষরিক অর্থে রূপক অর্থে নয়। কিন্তু এই ছবিটা ব্যাতিক্রম।

৯. খাওয়ানো।







যখন আপনার লোকের স্মৃতিচারণ হয়, তখন এটি কঠোরভাবে আক্রমণ করে (আপনি জানেন যে আমরা কি বোঝাতে চাইছি)।

১০. ছোট শরীর, বড় হাত?

বাচ্চাটি বড় হয়ে এই ছবিটাকে যত্ন করে আগলে রাখবে।







১১. ব্রু!

“বন্ধু ওকে ভূলে যাও, আমি জানি ও তোমাকে ছেড়ে চলে গেছে। কিন্তু বিশ্বাস কর তুমি খুব তাড়াতাড়ি আর একজনকে পেয়ে যাবে, আমি তোমাকে ভাল একজন খুঁজে দেব”।







১২. ভগবান আমার ক্ষমা প্রার্থনা গ্রহণ কর।

আমরা মানব সমাজ আপনার ক্ষমা প্রার্থী, যে আমরা আপনাকে রাগিয়া দিয়েছি। দয়া করে এই টোপটি গ্রহণ করে আমাদের ক্ষমা করুন, আমরা আপনার রাগের সামনে পড়তে চাই না।







১৩. এটা নিখুঁত….

আর কিছু না, আমরা এই সৌন্দর্যের তারিফ করি…..বগল!!!? আপনি কি জানেন? এই জন্যই আমাদের মধ্য অবিশ্বাসের সমস্যা আছে।

১৪. জোরে ভেঁপু বাজানো।







সাধারণ একটা মূর্তি দুপুরবেলা জোড় ভেঁপু বাজাচ্ছে। আমরা জানি না এতে অস্বাভাবিক কি আছে।

১৫. সবথেকে বড় অনুশোচনা।

আমরা ভেবে অবাক হচ্ছি যে এই ভদ্রলোক নিজের বউ কে কি ব্যাখ্যা দেবে যখন সে জিজ্ঞাস করবে যে তার টিম জেতা সত্ত্বেও তাকে এত বিধ্বস্ত দেখাচ্ছে কেন।







১৬. চাপা দেওয়া।

তাহলে কখন এই অসাধারণ আবরণটা খসে পড়বে? (যদি আপনি বুঝতে পারেন যে আমি কি বলতে চাইছি।) আপনার কি এই প্রবন্ধটা ভাল লেগেছে? তাহলে লাইক, কমেন্ট আর শেয়ার করতে ভুলবেন না।