বাঘের সঙ্গে লড়াই করে বেঁচে ফিরলেন রূপালী!

২৩ বছর বয়সী তরুণী রূপালী মিজরাম। গত সপ্তাহে একটি বাঘ তার ছাগলকে আক্রমণ করে। এ সময় তিনি লাঠি নিয়ে ছুটে গিয়ে বাঘকে আঘাত করতে থাকেন। বাঘও তার ওপর হামলে পড়ে। বাঘের সঙ্গে এ লড়াইয়ে আহত হন রূপালী। তার এ সাহসিকতার খবর এরই মধ্যে ভাইরাল হয়ে গেছে। চিকিৎসক জানিয়েছেন, তিনি শঙ্কামুক্ত। খবর- বিবিসির
figure>






ভারতের পশ্চিম মহারাষ্ট্রের রূপালি জানান, সে তার ছাগলে চিৎকার শুনে দৌড়ে ঘর থেকে বের হন। দেখেন তার ছাগলের ওপরে একটি বাঘ ঝাঁপিয়ে পড়েছে। দ্রুত তিনি একটি লাঠি তুলে নেন হাতে। এরপর ছুটে গিয়ে লাঠি দিয়ে বাঘের গায়ে আঘাত করতে থাকেন।

<

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন

এ সময় বাঘও তাকে আক্রমণ করে। তার মা এসে তাকে দ্রুত বাড়ির ভেতরে টেনে নিয়ে যান। এ সময় তিনিও আহত হয়েছেন। তবে তাদের দু’জনের কারও অবস্থা গুরুতর নয়। শিগগিরই তাদের হাসপাতাল থেকে রিলিজ দেওয়া হবে। তবে বাঘের আক্রমণে রূপালির ছাগলটির মৃত্যু হয়েছে।
figure>






গত সপ্তাহের এ ঘটনায় বাঘের সঙ্গে লড়াইয়ে বেঁচে ফেরার পর রূপালি একটি সেলফি তুলেছিলেন। যাতে তার মুখ রক্তমাখা দেখা যায়। রূপালির চিকিৎসার দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক জানান, তার মাথায়, কোমরে, হাতে ও পায়ে জখম ছিল। কিন্তু এসব জখম গুরুতর নয়। তিনি পুরোপুরি সুস্থ হচ্ছেন। মাথায় জখম থাকায় একটা সিটি স্ক্যান করা হয়েছিল ও তাকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছিল।
figure>






রূপালির মা জিজাবাই বলেন, আমি ভীত হয়ে দেখছিলাম, রূপালি রক্তাক্ত অবস্থায় লাঠি দিয়ে বাঘটাকে আঘাত করে যাচ্ছে। বাঘটা তার ওপরে ঝাঁপিয়ে পড়েছে। তখন ভাবছিলাম, আমার মেয়ে মারা যাচ্ছে। দ্রুত ছুটে গিয়ে মেয়েকে টেনে বাড়িতে নিয়ে আসি।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন

এরপর তারা ফরেস্ট গার্ডকে খবর দিলেও বাঘ চলে যাওয়ার আধা ঘণ্টা পর গার্ড এসে পৌঁছায়। এ ঘটনার ১০ দিন পর হাসপাতালে মা-মেয়ের একটি ছবি তুলেছে বিবিসির ফটো সাংবাদিক। তাতে তাদের সুস্থ দেখা গেছে।
figure>