Tuesday , 22 May 2018

নেইমারের চোখে বিশ্বকাপ মাতাবেন যারা!

আর মাত্র ৫৫ দিন পরই পর্দা উঠছে ফুটবলের সর্বোচ্চ আসর রাশিয়া বিশ্বকাপের। চার বছর পর একবার অনুষ্ঠিত হয় এই আসর। সেই আসরের দিকে তাকিয়ে থাকে গোটা বিশ্ব।













উন্মাদনায় মেতে ওঠে সকলে। ১৪ জুন থেকে ১৫ জুলাই পর্যন্ত পুরো একমাস ধরে চলবে এ মহাযজ্ঞ। ফুটবলের মহোৎসবে বড় বড় দলের বড় তারকার ছড়াছড়ি।

রাশিয়া বিশ্বকাপে জ্বলে উঠা নিয়ে মুখ খুলেছেন ব্রাজিলীয় তারকা নেইমার ডি সিলভা। নিজের আলোতে রাশিয়া বিশ্বকাপকে আলোকিত করবেন, সেটা নিশ্চিত। ব্রাজিলীয় তারকার চোখে অবশ্য আরো কয়েকজন রয়েছেন, যাঁদের পায়ের জাদুতে মাতাতে পারেন আসছে বিশ্বকাপের মঞ্চকে। নিজের দুই সতীর্থ ফিলিপ কুতিনহো আর গ্যাব্রিয়েল জেসাসের সঙ্গে নেইমার বলছেন মিসরের মোহাম্মদ সালাহর কথাও।

আপাতত পায়ের অপারেশন শেষে প্যারিস সেইন্ট জার্মেইন (পিএসজি) তারকা আছেন মাঠের বাইরেই। ফিরতে ফিরতে লেগে যাবে আরো মাসখানেক।













এই অবসরেই সাও পাওলোতে নেইমার মুখোমুখি হয়েছিলেন গণমাধ্যমের। সেখানেই লিওনেল মেসি আর ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো বাদে কারা হতে পারেন রাশিয়া বিশ্বকাপের তারকা, এমন প্রশ্নের জবাবে বিশ্বের সবচেয়ে দামি ফুটবলার জানালেন নিজের ভাবনা।

কুতিনহো আর জেসাসের ওপর নেইমারের ভরসার অন্ত নেই। নিজের এ দুই সতীর্থই পার্থক্য গড়ে দিতে পারেন দুই দলের মধ্যে এমনটাই মনে করেন পিএসজি ফরোয়ার্ড। নেইমারের মতে, ‘কুতিনহো আর জেসাস দুজনই গড়ে দিতে পারে পার্থক্য। আর আমি আশা করি তাঁরা সেটা পারবেন।’

লিভারপুলের হয়ে কি ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ, কি চ্যাম্পিয়নস লিগ—সবখানেই দারুণ উজ্জ্বল মিসরের সালাহ। নেইমার তাই জানালেন গোলের পর গোলের দেখা পাওয়া এই ফরোয়ার্ডের আলোয়ও উদ্ভাসিত হতে পারে বিশ্বকাপের আসর।













সাথে সাবেক বার্সেলোনা সতীর্থ ও উরুগুয়ে ফরোয়ার্ড লুইস সুয়ারেজ আর দুই বেলজীয় কেভিন ডি ব্রুইন ও ইডেন হাজার্ড ওপরও নজর রাখতে বলছেন সাবেক এই বার্সেলোনা তারকা।

নেইমার বলছেন, ‘সালাহ মিসরের হয়ে খুব বেশি মাঠে নামেনি। তবে বিশ্বকাপে সে ভালো একটা সময় কাটাতে পারে। আরো দারুণ কিছু প্রতিভাবান ফুটবলার মাঠে নামছে। তাঁদের মধ্যে হাজার্ড, ডি ব্রুইন আর সুয়ারেজ অন্যতম।’