অবশেষে জানা গেলো সাকিবকে দলে রাখার কারণ

ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ফিল্ডিং করতে গিয়ে আহত হয়ে মাঠ ছাড়েন সাকিব আল হাসান। এরপর হাতে সেলাই পর্যন্ত দিতে হয় টাইগারদের টি-২০ এবং টেস্ট দলের অধিনায়কের। যে কারণে লঙ্কানদের বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে খেলতে পারেননি। টি-২০ সিরিজের স্কোয়াডে রাখা হয়েছিলো। অবশেষে জানা গেলো সাকিবকে দলে রাখার কারণ।

তবে এ সিরিজেও নাকি শেষ পর্যন্ত খেলা হচ্ছে না বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের। রোববার নিজেই জানিয়েছেন বিষয়টি। এছাড়া সোমবার ফেসবুকে আহত হাতের একটি ছবি পোস্ট করেছেন সাকিব। এতে দেখা যাচ্ছে সেলাই কাটা হলেও খেলার জন্য পুরোপুরি সেরে উঠেনি তাঁর হাত।

এদিকে ইনজুরির থেকে ফিট না হওয়ার পরেও টি-টোয়েন্টি দলে সাকিবকে রাখায় নির্বাচক কমিটির ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে ক্রিকেট পাড়ায়।

তবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক জালাল ইউনুস বলছেন সাকিবের সাথে কথা বলেই নেয়া হয়েছিলো সিদ্ধান্ত।

বিসিবি পরিচালক জালাল ইউনুস বলেন, ‘সাকিব নিজেও জানে যে, সে খেলতে পারবে। এমন একটা সম্ভাবনা তৈরি হয়েছিলো বলে তাকে দলে রাখা হয়েছিলো। নির্বাচকরা এবং সাকিব মিলেই কিন্তু এই সিদ্ধান্তটা নিয়েছে।’

টি-২০ সিরিজ খেলার সম্ভাবনার বিষয়টি নাকচ করে দিয়ে সাকিব বলেন, ‘টি-২০ সিরিজ খেলার সম্ভাবনা মনে হয় নাই। কারণ, ডাক্তার বলেছেন, আরও কম পক্ষে দুই সপ্তাহ সময় লাগবে।’

তবে সাকিবের এমন কথায় বিসিবি’র সমন্বয়হীনতা ফুঠে উঠে স্পষ্টই।

Comments

comments