মুসলিম বলে নাজেহাল হলেন ইমরান তাহির

বলা হয় ক্রিকেট ‘জেন্টলম্যানস গেম’৷ কিন্তু ক্রিকেট স্টেডিয়ামে গ্যালির আচরণে এই উপাধি খোয়াতে চলেছে ২২ গজের দৃষ্টিনন্দন লড়াই৷ কিন্তু ঘরের মাঠেই বর্ণবৈষ্যমের শিকার হলেন পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত প্রোটিয়া ক্রিকেটার৷

শনিবার ওয়ান্ডারার্সে ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকার চতুর্থ ওয়ান ডে চলার সময় বর্ণ বৈষম্যের শিকার হলেন দক্ষিণ আফ্রিকার লেগ-স্পিনার ইমরান তাহির৷ গ্যালারি থেকে বর্ণবিদ্বেষমূলক মন্তব্য উড়ে আসে তাহিরকে উদ্দেশ্য করে৷খেলা শেষ হওয়ার পর গ্যালারিতে এসে নির্দিষ্ট ব্যক্তিটিকে চিহ্নিত করে স্টেডিয়াম সিকিউরিটির কাছে অভিযোগ দায়ের করেন তাহির৷

পুরো বিষয়টি সোমবার একটি প্রেস রিলিজের মাধ্যমে স্বীকার করে ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা৷ তবে এর আগে ঘটনাটির ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে ফেসবুকসহ অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়াতে৷ দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ডের তরফ থেকে একটি বিবৃতি জারি করে বলা হয়, ‘সোশ্যাল মিডিয়াতে তাহিরের ভিডিওটি ফুটেজটি ছড়িয়ে পড়ার বিষয়টি আমাদের নজরে রয়েছে৷ জোহানেসবার্গে ভারতের সঙ্গে চতুর্থ ম্যাচ চলাকালীন দর্শকাসনে থাকা এক অপরিচিত ব্যক্তি ইমরান তাহিরকে উদ্দ্যেশ করে বর্ণবিদ্বেষ মন্তব্য করে৷ অভিডুক্ত ব্যাক্তিকে চিহ্নিত করে পুরো বিষয়টি জানিয়ে স্টেডিয়াম সিকিউরিটির কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন তাহির৷ অভিযুক্ত ব্যক্তিকে শারীরিক বা মৌখিক কোনো প্রকারের আঘাত পৌঁছানোর কোনো চেষ্টা করেননি ইমরান৷’

ইমরান তাহিরের কাছে অভিযোগ পেয়ে অভিযুক্ত দর্শককে মাঠের বাইরে বের করে দেন মাঠের নিরাপত্তাকর্মীরা৷ আইসিসি-র অ্যান্টি-রেসিজিম কোড অনুসারে এই অপরাধে জড়িত থাকা ব্যক্তিকে স্টেডিয়াম থেকে বের করে দেয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তার বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলাও রজ্জু করা হয়৷

খুবই দুর্ভাগ্যজনক হলেও তাহিরকে উদ্দেশ করে এ রকম বর্ণবিদ্বেষমূলক মন্তব্য এবারেই প্রথম নয়৷ তবে এই প্রথম নয়, এর আগেও বর্ণ বৈষ্যমের শিকার হয়েছিলেন প্রোটিয়া লেগ-স্পিনার৷ ২০১৫ বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ায় মানুকা ওভালে তাহিরের উদ্দেশ বর্ণবিদ্বেষ মন্তব্য উড়ে এসেছিল গ্যালারি থেকে৷

Comments

comments