মাঠে নামার আগে বাংলাদেশকে নিয়ে এ কী বললেন রশিদ খান!

0
255

বাংলাদেশ দলের ব্যাটসম্যানদের কাছে রশিদ খান একটি ভূতের নাম। এখনো পর্যন্ত বাংলাদেশের কোন ব্যাটসম্যান সঠিকভাবে রাশেদ খানেকে সামাল দিতে পারেননি। বাংলাদেশের বিপক্ষে এখন পর্যন্ত তিনটি ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন তিনি। তিন ম্যাচের মধ্যে ১৫ গড়ে সাতটি উইকেট লাভ করেছেন তিনি।

শুধুমাত্র বল হাতে নয় বাংলাদেশের বিপক্ষে ব্যাট হাতেও বিধ্বংসী তিনি। বাংলাদেশের বিপক্ষে গত ম্যাচে ব্যাট হাতে অপরাজিত ৫৭ রান করার পর বল হাতে ৯ ওভারে মাত্র ১৩ রান দিয়ে নিয়েছেন ২ উইকেট। ১.৪৪ ইকনোমি রেটে রান দিয়ে একাই বাংলাদেশের রানকে আটকে দিয়েছিলেন তিনি।

এশিয়া কাপে আজ সুপার ফোর রাউন্ডের দ্বিতীয় ম্যাচে আবারও বাংলাদেশের মুখোমুখি হচ্ছে রশিদ খানের দল আফগানিস্তান। আফগান ক্রিকেটাররা এখন বিশ্বাস করেন, এশিয়া কাপটা ঘরে নিয়ে যেতে পারবেন। তাই ম্যাচ জিতে নয়, ট্রফি জিতেই উৎসব করতে চান তারা।

সীমিত ওভারের ক্রিকেটে বিশ্বের অন্যতম সেরা লেগ স্পিনার ম্যাচের পর ম্যাচ সাফল্যের মহিমায় উদ্ভাসিত হচ্ছেন। পাকিস্তানের বিপক্ষে জিততে না পারলেও বাংলাদেশের ম্যাচের আগে ঠিকই বাকি দলগুলোকে হুঙ্কার দিয়ে রাখছেন। তিনি সরাসরি জানিয়ে দিলেন, তার হাতে নাকি এখনও অনেক অস্ত্র আছে। যেগুলো দিয়ে প্রতিপক্ষকে ভড়কে দিতে চান তিনি।

রশিদ খান বলেন, ‘আমার হাতে কিন্তু এখনও অনেক অস্ত্র আছে। বেশ কয়েকরকম ডেলিভারি আছে, যা আমি নেটে প্র্যাক্টিস করেছি; কিন্তু ম্যাচে এখনও প্রয়োগ করিনি। সময় হলে ওগুলোও হাত থেকে বের করব।’

এমনিতেই রশিদের লেগ স্পিন আর গুগলি বুঝতে খুব সমস্যায় পড়তে হচ্ছে ব্যাটসম্যানদের। তারওপর অন্য কোনও ‘ডেলিভারি’ ঝুলি থেকে বের করে আনলে তো কথাই নেই; কিন্তু রশিদের বল বুঝতে এত সমস্যা হচ্ছে কেন? প্রেসবক্সে দাঁড়িয়ে সাবেক এক ব্যাটসম্যান বলছিলেন, ‘রশিদের আর্ম স্পিডটা এত বেশি, যে বল ছাড়ার সময় কব্জির মোচড়টা কোন দিকে দিচ্ছে, সেটা বোঝা খুবই কঠিন।’

কয়েকদিন আগেই রশিদ খান বলে দিয়েছেন, ‘আমি শুধু রিস্ট স্পিনারই নই, আমি ফিঙ্গার স্পিনারও।’ মোট কথা, রশিদের দাবি, তিনি কব্জির মোচড়ে তো বটেই, আঙুলের সাহায্যেও বল স্পিন করাতে পারেন। তার নতুন অস্ত্রের পিছনে আঙুলের মাহাত্ম্য থাকবে কি না, এখন সেটাই দেখার।