Sunday , 20 May 2018

তুরাগে উত্তরা ইউনিভার্সিটির ছাত্রীকে শারিরীক হেনস্থার জন্য টানাটানি, অতপর যা ঘটলো..

বাসে আজ নারীরা কতটা নিরাপদ? এবার উত্তরা ইউনিভার্সিটির এক ছাত্রীর উপর তুরাগ পরিবহনের ড্রাইভার ও হেলপার মিলে কাম বাসনা পূরণের চেষ্টা করে বলে জানা গেছে। গত কাল বরিবারের ঘটনা।







উত্তরা ৬ ন সেক্টর থেকে উত্তরা ইউনিভার্সিটির ক্যাম্পাসে যাবার জয় ঐ ছাত্রী তুরাগ পরিবহনে উঠে। কিন্তু কিছুক্ষন পর আর গাড়ী সামনে যাবেনা বলে নতুন করে আর যাত্রী উঠানো বন্ধ করে দেয় হেল্পার ড্রাইভার।







তখন গড়িতে ৭ -৮ জন যাত্রী ছিল। এর পর ওই ছাত্রী গাড়ী থেকে নামতে চেষ্টা করলে। হেলপার দরজা বন্ধ করে দেন। কনট্রাক্টর তার হাত ধরে টান হেছড়া শুরু করেন। এক পর্যায়ে ছাত্রী জীবনের মায়া ত্যাগ করে চলন্ত গাড়ী থেকে লাফ দিয়ে নেমে পড়েন।এরপর তিনি অন্য একটি গাড়ীতে চড়ে উনিভার্সিটির ক্যাম্পাসে এসে বিষয়টি কর্তৃপক্ষকে জানালে কর্তৃপক্ষ আশানুরূপ কোনো সমাধান দিতে পারেনি।







সহপাঠিরা মিলে আইঙ্গত ব্যবস্থা নেবার দাবী জানালে তাতেই কিছু না হলে তার রাস্তায় নেমে আসে। রবিবার উত্তরা ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা দুপুর ১২টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত প্রায় অর্ধশতাধিক তুরাগ বাস আটক করে।







এসময় বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা আসামি গ্রেফতার এবং আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য বিভিন্ন স্লোগান সম্বলিত প্ল্যাকার্ড নিয়ে স্লোগান দেয়। তবে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে বিষয়টি নিয়ে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।