কলকাতায় সেন্সর, ঢাকায় অপেক্ষা

0
21

বাংলাদেশে যৌথ প্রযোজনার চলচ্চিত্রের প্রিভিউ কমিটির কাছ থেকে প্রাথমিক ছাড়পত্র পায়নি চলচ্চিত্র ‘তুই শুধু আমার’। তবে এরই মধ্যে ভারতের কলকাতার যৌথ প্রযোজনার প্রিভিউ কমিটি ও সেন্সর বোর্ড থেকে ছাড়পত্র পেয়েছে ছবিটি। আগামী ঈদুল আজহায় ভারতের পশ্চিমবঙ্গজুড়ে ছবিটি মুক্তি পাওয়ার কথা।







গত ঈদুল ফিতরের ঠিক আগে আগে ছবিটি দেখে বাংলাদেশের প্রিভিউ কমিটি। ছবি দেখার পর কমিটি বলেছিল, ছবিটি তৈরির সময় যৌথ প্রযোজনার নীতিমালা পুরোপুরি মানা হয়নি। এ কারণেই প্রিভিউ কমিটি ছবিটির প্রাথমিক ছাড়পত্র দেয়নি। ফলে চূড়ান্ত ছাড়পত্র পেতে সেন্সর বোর্ড পর্যন্ত যেতে পারেনি ছবিটি।







কিন্তু ছবির বাংলাদেশ অংশের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান অ্যাকশন কাট এন্টারটেইনমেন্ট প্রশ্ন তুলছে, প্রিভিউ কমিটির কাছ থেকে চিত্রনাট্য পাস করেই ছবিটি নির্মাণ করা হয়েছে। এখন প্রিভিউ বোর্ড থেকে কেন ছাড়পত্র দেওয়া হচ্ছে না?







ছবির বাংলাদেশ অংশের প্রযোজক ও পরিচালক অনন্য মামুন বলেন, ছবিটি ২০১২ সালের নীতিমালায় তৈরি। এখন ২০১৭ সালের নতুন নীতিমালায় প্রিভিউ করলে তো হবে না। তা ছাড়া যৌথ প্রযোজনার নীতিমালায় ছবির সব বিষয়ে দুই দেশের সমান অংশীদারত্ব থাকার কথা। কিন্তু এই ছবির গল্পই লন্ডন শহরকে ঘিরে। এ কারণে কলকাতা ও বাংলাদেশের কোথাও ছবির অর্ধেক শুটিং করা হয়নি। ছবির গল্পের বিষয়টি বুঝতে পেরে কলকাতার প্রিভিউ কমিটি ছবিটি আটকায়নি, ছাড়পত্র দিয়েছে। কিন্তু এখানে ছাড়পত্র মিলছে না।







বাংলাদেশে ছবিটির ছাড়পত্র দিতে আরেকবার বিবেচনার জন্য সম্প্রতি তথ্য মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেছেন অনন্য মামুন। তিনি বলেন, ‘অনেক বিনিয়োগ করেছি ছবিটিতে। ভুলত্রুটি ক্ষমা চেয়ে মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেছি। এখন ছাড়পত্র পাওয়ার অপেক্ষায় আছি।’







এদিকে আগামী ঈদুল আজহায় ভারতে মুক্তির লক্ষ্যে প্রচারণা শুরু করেছে ছবির ভারতের অংশের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান এসকে মুভিজ। কলকাতা থেকে মুঠোফোনে প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক অশোক ধানুকা বলেন, ‘মাসখানেক আগে ছাড়পত্র পেয়েছি। প্রচারণা শুরু করেছি। আগামী ঈদে পশ্চিমবঙ্গজুড়ে ছবিটি মুক্তি দেওয়ার ইচ্ছা আছে।’







ছবির ভারতীয় অংশের পরিচালক জয়দীপ মুখার্জি। এতে অভিনয় করেছেন বাংলাদেশের মাহিয়া মাহি, সৈয়দ হাসান ইমাম, শাহেদ আলী, রেবেকা এবং ভারতের সোহম, ওম প্রমুখ।