রং ফর্সাকারী ক্রিমে হতে পারে ক্যান্সার

0
411

রং ফর্সা করার জন্য অনেকেই রং ফর্সাকারী ক্রিম বা ফেয়ারনেস ক্রিম ব্যবহার করেন। তবে আজেবাজে রং ফর্সাকারী ক্রিম ব্যবহারের কারণে ত্বক সাময়িকভাবে ফর্সা হলেও উল্টো ত্বকের ক্ষতি হয়। এ বিষয়ে চর্ম রোগ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এসব ক্রিম ক্ষতিকর উপাদানে ভরা। যা ব্যবহারকারীর শরীরে নানা রকম চর্ম রোগ সৃষ্টি করছে। শুধু তাই নয়, দীর্ঘ দিন ব্যবহারে ক্যান্সারসহ অন্য অনেক ভয়ঙ্কর রোগের কারণ হতে পারে এসব ক্রিম।

রূপচর্চায় প্রসাধনীর ব্যবহারের ইতিহাস কমবেশি ১০ হাজার বছর পুরোনো। শুরুটা হয়েছিলো প্রাকৃতিক নানা উপাদান দিয়ে এরপর সময় যত গড়িয়েছে এই সব উপাদানে এসেছে বৈচিত্র, বেড়েছে প্রসাধনী আর ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রির কলেবর। আর খুব স্বাভাবিকভাবেই বেড়েছে বাণিজ্যও।

ফর্সা মানেই সুন্দর- এই ধারণার সঙ্গে বেড়েছে রং ফর্সাকারী ক্রিমের ব্যবহার। এরজন্য অনেকে যেমন নামীদামী ব্র্যান্ডের ক্রিম ব্যবহার করছেন তেমনি ইনস্ট্যান্ট ফেয়ারনেসের নামে অনেকে ক্ষতিকর ক্রিমের দিকেও ঝুঁকছেন। রাজধানীসহ জেলাশহরে স্কিন শাইন, গোরী, চাঁন্দনীসহ নানা নামের ক্রিমের বিক্রি ও ব্যবহার ক্রমেই বাড়ছে।

দুশ’ থেকে আড়াইশ’ টাকা দামের এই ক্রিমের বেশীরভাগেরই মোড়কে লেখা মেড ইন পাকিস্তান। আবার দেশেও নানাভাবে প্রস্তুত করে অসাধু একটি চক্র। চর্ম বিশেষজ্ঞরা জানালেন, ক্ষতিকর ক্রিম ব্যবহারে ত্বকের ক্যান্সারসহ নানা রোগের ঝুঁকি তৈরী করে।

চর্ম বিশেষজ্ঞরা জানান, ফার্স হওয়ার ক্রিমের যে ন্যানো কার্বন থাকে তা আলো এবং হাওয়ার সংস্পর্শে ‘অ্যাক্টিভ অক্সিজেন’-এ রূপান্তরিত হয়। অ্যাক্টিভ অক্সিজেন চামড়ার জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। এই অ্যাক্টিভ অক্সিজেন মানুষের চামকড়ার কোষ মেরে ফেলে। ফলে চামড়ায় ক্যান্সার দেখা দিতে পারে। ক্ষতিকর এসব ক্রিমের বিষয়ে সচেতনতা যেমন দরকার তেমনি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নজরদারি বাড়ানো উঠিৎ।