চা বানানোর পরেই টি-ব্যাগ ফেলে দেন? জেনে নিন পরিত্যক্ত টি-ব্যাগের ১০টি উপকারিতা

0
54

সাধারণত চা বানানোর পরেই টি-ব্যাগ ফেলে দেওয়া হয়। কিন্তু, চা বানানোর পরেও যে টি-ব্যাগ ব্যবহার করা যায়, তা হয়তো আমরা অনেকেই জানি না। পরিত্যক্ত টি-ব্যাগ থেকে পাওয়া যায় ১০ ধরনের উপকারিতা।

ব্যবহৃত টি-ব্যাগে পছন্দের ‘অ্যাসেনশিয়াল ওয়েল’এর কয়েক ফোঁটা দিয়ে দিন। বাড়িতে বা অফিস ঘরের কোনায় ঝুলিয়ে রাখুন সেই ব্যাগ। এয়ার ফ্রেশনারের কাজ করবে।
চা-পাতা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে। তাই স্নানের আগে বালতির জলে টি-ব্যাগ ডুবিয়ে রাখুন।
টি-ব্যাগের চা-পাতাগুলো বের করে টবের মাটিতে মিশিয়ে দিন। এতে মাটি উর্বর হয়।
ব্যবহৃত টি-ব্যাগ আবার জলে ফুটিয়ে নিন। ঠাণ্ডা হয়ে গেলে ওই জল দিয়েই পরিষ্কার করে নিন কাচ-আয়না।
চা-পাতা ফুটিয়ে নিন, সেই পানি দিয়ে নিয়মিত চুল ধুতে পারেন। অথবা, ভেজা চা-পাতা চুলের গোড়ায় মাখিয়ে রাখুন গোসলের আগে। এর ফলে চুলের উজ্জ্বলতা বাড়ে।
ব্যবহৃত টি-ব্যাগ গরম পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। এই পানি দিয়েই তৈলাক্ত বাসন ধুয়ে নিন। শুধু যে তেলচিটে ভাব চলে যায় তাই নয়, বাসন হবে ব্যাক্টেরিয়া মুক্ত।
পাস্তা বা জেসমিন রাইস তৈরির জন্য জল ফোটানোর সময় ব্যবহার করা টি-ব্যাগ তার ওপরে ঝুলিয়ে রাখুন। পাস্তা বা চাল দেওয়ার সময় তা সরিয়ে নিন। এর ফলে চায়ের একটা হাল্কা সুগন্ধ রয়ে যাবে খাবারে।
কার্পেট পরিষ্কার করার আগে, ব্যবহৃত টি-ব্যাগ হাল্কা গরম পানিতে ভিজিয়ে নিন। এবার ভিজে যাওয়া চা-পাতা ছড়িয়ে দিন কার্পেটের ওপর। চা-পাতা শুকিয়ে গেলে, ভ্যাকউম ক্লিনার দিয়ে পরিষ্কার করে নিন। সুগন্ধি বা বিভিন্ন ফ্লেভারের চা-পাতা হলে, কার্পেট থেকে সেই সুবাসই বের হবে।
জুতা থেকে অনেক সময় বাজে গন্ধ বের হয়। তা থেকে মুক্তি পেতে ব্যবহৃত টি-ব্যগ শুকিয়ে নিয়ে জুতার ভেতরে রেখে দিন। গন্ধ দূর হবে।
চা-পাতা অ্যান্টি-অক্সিডেন্টের কাজ করে। দিনের শেষে তাই চা পাতা ভেজানো পানিতে পা ডুবিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ। এতে করে পায়ের ডেড-স্কিনও পরিষ্কার হয়ে যায়।