Sunday , 20 May 2018

সাগর থেকে উঠে আসছে রহস্যময় ভয়ঙ্কর দানব, দেখুন ভিডিওতে

গত কয়েক বছর ধরেই পৃথিবীর বিভিন্ন উপকূলে ভয়ঙ্কর দর্শন সব রহস্যময় প্রাণীর মৃতদেহ ভেসে উঠতে দেখা যাচ্ছে। এর আগে জর্জিয়া, ইন্দোনেশিয়া, স্পেন, রাশিয়াসহ বিভিন্ন দেশের উপকূলে এমন অদ্ভুত প্রাণীর মৃতদেহ নিয়ে রহস্যের জন্ম নিয়েছিল। যার কোনো সমাধান আজও মেলেনি।







বিজ্ঞান এখনও সাগর তলের রহস্য উন্মোচন করতে পারেনি! তাই উপকূলে এমন অদ্ভুত প্রাণীদের ব্যাপারে কোনো সন্তোষজনক উত্তর বিজ্ঞানীদের কাছে নেই। তবে প্রাচীন উপকথায় যেসব সামুদ্রিক দানবের কথা প্রচলিত আছে তা যে নিছক রূপকথা নয়, তাই যেন প্রমাণ করছে এসব মৃত প্রাণীরা।

গত ১১ মে ফিলিপাইনের ওরিয়েন্টাল মিন্দোরো প্রদেশের সান এন্টোনিও শহরের কাছে উপকূলে এমন অদ্ভুত দানব আকারের মৃত প্রাণীকে পড়ে থাকতে দেখা যায়। স্থানীয় জেলেরা প্রথমে একে দেখতে পান। এরপর খবর ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন স্থান থেকে অদ্ভুত প্রাণীটিকে দেখতে জনসমাগম ঘটে।







ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি স্টার এক প্রতিবেদনে জানায়, ২০ ফুট দীর্ঘ মৃত প্রাণীটিকে দেখে কেউ কেউ গলদা চিংড়ি বলে ধারণা করছেন। কিন্তু স্থানীয় জেলেরা বলছেন, সেটি চিংড়ি নয়।

অনেকেই অদ্ভুত দানবাকৃতির মৃত প্রাণীর সেই ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ করায় তা ভাইরাল হয়। তবে আলোচনা জমে উঠলেও মৃত প্রাণীর রহস্যের কোনো সমাধান হয়নি।







কেউ কেউ আবার একে পৃথিবীর আসন্ন বিপর্যয়ের ইঙ্গিত বলে দাবি করছেন। তাদের মতে, মহাপ্রলয়ের আগে পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে স্থল ও জলের গভীর থেকে রহস্যময় দানবাকৃতির প্রাণী উপরে উঠে আসতে থাকবে।

তাদের দাবি, এসব ঘটনাকে ইঙ্গিত বলেই গণ্য করার কথা বিভিন্ন প্রাচীন গ্রন্থে নাকি বলা রয়েছে। যারা প্রাণীটিকে প্রত্যক্ষ করেছেন তারা দাবি করেছেন, এমন অদ্ভুত দানবের কথা দেখা তো দূরে থাক.. শোনেননি পর্যন্ত।







প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ফেব্রুয়ারিতেও ফিলিপাইনের দিনাগাট দ্বীপে এমন চিংড়ি সদৃশ মৃত দানব ভেসে উঠেছিল। সেবার ওই প্রাণীকে হাঙর বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল। যদিও কর্তৃপক্ষের মধ্যেই সেই দাবি নিয়ে বিতর্ক ছিল।

ফিলিপাইনের গবেষকেরা বলছেন, মৃত দানবাকৃতির প্রাণীটির ডিএনএ পরীক্ষা করলে হয়তো রহস্যের সমাধান মিলবে।







ভিডিওটি দেখুন:এখানে ক্লিক করে

http://video.zoombangla.com/video/14413/