Tuesday , 22 May 2018

যে কারণে তসলিমার বইয়ের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করলো পশ্চিমবঙ্গ সরকার

বাংলাদেশ থেকে নির্বাসিত বহুল আলোচিত নারীবাদী সাহিত্যিক তসলিমা নাসরিন এখন ভারতে নির্বাসিত। মাতৃভূমি ছেড়ে গত ২৪ বছর নির্বাসিত জীবনযাপন করছেন তিনি।







ধর্মীয় মৌলবাদীদের রোষানলে পড়ে হত্যার হুমকির মুখে ১৯৯৪ সালে দেশ ত্যাগে বাধ্য হওয়া বিতর্কিত এ লেখক প্রবাসে থেকেও নানা সময় বিস্ফোরক মন্তব্য করে দেশ-বিদেশের গণমাধ্যমের শিরোনাম হচ্ছেন।







এবার জানা গেলো, বিতর্কিত বাংলাদেশের নির্বাসিত তসলিমা নাসরিনের বই প্রকাশের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। আর বিষয়টি জানিয়েছেন খোদ তসলিমা নাসরিন নিজেই।







শনিবার কেরালার একটি শপিংমলে নিজের বই প্রকাশ অনুষ্ঠানে আসেন তসলিমা। ওইদিন প্রকাশ পায় তার পরবর্তী বই ‘স্পিল্ট-আ লাইফ’। সেখানে তিনি সাংবাদিকদের প্রশ্নের মুখোমুখি হন।







এসময় তিনি বলেন, মুসলিম সম্প্রদায়ের ভাবাবেগে আঘাত করার ‘অপরাধে’ পশ্চিমবঙ্গ সরকার আমার বই প্রকাশের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। কিন্তু আমি যে শব্দ ব্যবহার করি সেগুলো এখন ইন্টারনেটের মাধ্যমে ছড়িয়ে গিয়েছে। কেউ আমায় নিজের ভাব প্রকাশে বাধা দিতে পারবে না।







এদিন ধর্ষকদের মৃত্যুদণ্ড দেয়ার বিরুদ্ধেও মত দিয়েছেন তসলিমা নাসরিন। কারণ তার মতে, ধর্ষকরাও মানুষ। তাদেরও বেঁচে থাকার অধিকার আছে।







তসলিমা বলেন, পশ্চিমবঙ্গে ধর্ষককে ফাঁসিকাঠে ঝোলানো হয়। তাই বলে কি রাজ্যে ধর্ষণের সংখ্যা কমেছে? প্রশ্ন করেন লেখিকা৷ তার মতে, ছেলেদের আগে যথোপযুক্ত শিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলতে হবে। তবেই তাদের এই ধরনের অপরাধ সংগঠিত করা থেকে দূরে রাখা যাবে।







তিনি আরও বলেন, ‘কেউ অপরাধী হয়ে জন্মায় না। তাই সবাইকে নিজেদের ভুল শোধরানোর একটা সুযোগ দেওয়া উচিত। নারী অধিকার নিয়ে কথা বলি বলে মৌলবাদীদের হামলার লক্ষ্য আমি। তবে আমি মানবতায় বিশ্বাসী। ধর্মের নামে মানুষকে হত্যা করার প্রচণ্ড বিরোধী।’