পৃথিবীর সবচেয়ে ব্যয়বহুল ১৫ টি তরল পদার্থ, যার অনেকগুলোই আমরা এখনো ব্যবহার করিনি!

ব্যয়বহুল শব্দটির সাথে আমরা সবাই পরিচিত। পৃথিবীতে অনেকগুলো তরল পদার্থ আছে যা আমরা কল্পনাও করতে পারি না বা এগুলোর দাম সম্পর্কেও আমরা অবগত নই। আজকের আয়োজনে থাকলো পৃথিবীর সবচেয়ে ব্যয়বহুল ১৫ টি তরল পদার্থ সম্পর্কে, যার অনেকগুলোই আমরা এখনো ব্যবহার করিনি! চলুন দেখে আসা যাক-

১৫। লিক্যুইড পেপার- প্রতি গ্যালন ১৫০ ডলারঃ লিক্যুইড পেপার একটি সংশোধনী কলম যা আপনাকে লেখা ভুলগুলো ঠিক করতে সহায়তা করে।

১৪। পেনিসিলিন- প্রতি গ্যালন ২২৬ ডলারঃ পেনিসিলিন এন্টিবায়োটিকের একটি বড় গ্রুপ যা পেনিসিলিন ভি, পেনিসিলিন জি, বেঞ্জেথিন পেনিসিলিন এবং প্রোভেন পেনিসিলিনে অন্তর্ভুক্ত কর হয়। পেনিসিলিন মূলত বিভিন্ন সংক্রমণের জন্য ব্যবহার করা হয়।

১৩। পেচৌলি অপরিহার্য তেল- প্রতি গ্যালন ৬০৫ ডলারঃ এই ব্যয়বহুল তেল Pogostemon নামক উদ্ভিদের তাজা বা শুকনো পাতা থেকে তৈরি হয়।

১২। মানবদেহের রক্ত- প্রতি গ্যালন ১৩৩০ ডলারঃ একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের শরীরের ১.৩ গ্যালন রক্ত রয়েছে, যার মধ্যে রয়েছে রক্তরস এবং কোষ। আমাদের শরীর রক্ত ছাড়া কাজ করতে পারে না, তবে রক্ত দান করতে পারে।

১১। গামা হাইড্রক্সিবিট্রিক অ্যাসিড (GHB)- প্রতি গ্যালন ২২১০ ডলারঃ GHB, যা ৪-হাইড্রক্সিব্বোটোনিক এসিড নামেও পরিচিত। প্রধানত নর্লোলেপসি, অনিদ্রা, ক্যাপ্যাটেক্সি এবং অ্যালকোহলিজির চিকিৎসার জন্য ব্যবহৃত হয়।

১০। নেইল পলিশ- প্রতি গ্যালন ২২০০ ডলারঃ Essie বিশ্বখ্যাত একটি নেইল পলিশ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান, যা দামী ও সুন্দর সুন্দর নেইল পলিশ উৎপাদন করে। এছাড়াও আরও অনেক উচ্চ মানের ব্র্যান্ড বাজারে রয়েছে।

৯। কালো প্রিন্টার কালি- প্রতি গ্যালন ২৩৮০ ডলারঃ কোম্পানিগুলো সেরা কালি ও মানের গবেষণা এবং উন্নয়নে প্রচুর অর্থ ব্যয় করে। কিন্তু আমরা অতি সহজেই তা বাজারে পেয়ে যায়।

৮। পারদ- প্রতি গ্যালন ২৯৬৬ ডলারঃ প্রধানত থার্মোমিটার উৎপাদনে আটি ব্যবহৃত হয়। তাছাড়া রাসায়নিক শিল্প, ধাতু উত্পাদন, এবং কৃষি এটি খুবই দরকারী।

৭। ইন্সুলিন- প্রতি গ্যালন ১৩১০০ঃ এটি রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে এবং বিপাকীয় ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। ইনসুলিন ডায়াবেটিসের চিকিত্সার জন্য একটি অপরিহার্য ঔষধ।

৬। চ্যানেল নং ৫- প্রতি গ্যালন ২৩৩০০ঃ বিশ্বখ্যাত এই পারফিউম সবার কাছে পরিচিত। এটি প্রথম বিক্রি শুরু হয় ১৯২২ সালে, যা এখনো বাজারে শীর্ষস্থান দখল করে আছে। বিরল ফুলের পাপড়ি এবং একটি বিরল মূলের সমন্বয় এটিকে পরিচিত করে তুলেছে ব্যয়বহুল পারফিউম হিসেবে।

৫। Horseshoe Crab Blood(এক ধরনের কাঁকড়ার রক্ত)- প্রতি গ্যালন ৫৩২৫০ ডলারঃ এই কাঁকড়ার রক্ত হিমোগ্লোবিন ধারণ করে না। পরিবর্তে, তারা হিমোক্যানিন ধারণ করে, যে কারণে এই রক্ত লাল না হয়ে নীল হয়। ঔষধ উৎপাদনে যা খুবই প্রয়োজনীয়।

Horseshoe crab blood(এক ধরনের কাঁকড়ার রক্ত)Horseshoe Crab Blood(এক ধরনের কাঁকড়ার রক্ত)

৪। এলএসডি- প্রতি গ্যালন ১০৯২০০ ডলারঃ এটি বিপজ্জনক আধা-সিন্থেটিক সাইকোঅ্যাক্টিভ পদার্থ ও খুব জনপ্রিয় হিপ্পি ড্রাগ। বর্তমানে প্রায় সব দেশেই এলএসডি নিষিদ্ধ।

৩। কিং কোবরার বিষ- প্রতি গ্যালন ১৩৫৭০০ ডলারঃ কিং কোবরা বিশ্বের বিষধর সাপগুলোর মধ্যে অন্যতম। যার বিষ ঔষধ তৈরিতে খুবই উপযোগী।

২। স্কর্পিয়ান(বিশেষ ধরনের মাকড়শা) বিষ- প্রতি গ্যালন ৩৪৬২৬০০০ ডলারঃ এই বিষের প্রোটিনটি একাধিক স্ক্লেরোসিস, রিমিটয়েড আর্থ্রাইটিস, এবং প্রদাহযুক্ত অন্ত্রের রোগের ঔষধ তৈরিতে ব্যবহৃত হয়।

১। বিশ্বের সবচেয়ে দামী মদ- প্রতি গ্যালন ৩৫৫৯৮০০০ ডলারঃ প্রচলিত ইতালীয় রেসিপিগুলোর মধ্যে আমলফির পাহাড় থেকে লেবু ব্যবহার করে এই পানীয় তৈরি করা হয়। তবে, এই কারণে এটি মূল্যবান নয়। এটির ঢাকনায় রয়েছে ১৩ ক্যারটের ৩ টি ডায়মন্ড ও বোতলের মাঝখানে রয়েছে ১৮.৫ ক্যারটের বিরল ডায়মন্ড!

Comments

comments