Thursday , 24 May 2018

‘মশারির মতো পাতলা ফিনফিনে শাড়ি পরতে দিয়েছিল ওরা’

উমা বৌদি’ চরিত্রের স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়ের মেয়াদ শেষ হয়ে এসেছিল, দ্বিতীয় সিজনে আসতে চলেছিলেন ঝুমা বৌদি। তাঁকে নিয়ে ঘটছে একের পর এক বিতর্কিত ঘটনা।







প্রথমত, জানা গিয়েছিল ঝুমা বৌদির ভূমিকায় থাকছেন শ্রীলেখা মিত্র। অভিনেত্রী নিজেও তাই জানতেন। কিন্তু প্রমো রিলিজের দিন শ্রীলেখার জায়গায় দেখা মিলল অন্য মুখের। ভোজপুরী অভিনেত্রী মোনালিসা। তিনিই হলেন সিরিজের নতুন কাস্ট ‘ঝুমা বৌদি’৷ এরপরই শুরু হয় নানান বিতর্ক।







দিন কতক আগে ‘দুপুর ঠকুরপো’র নির্মাতারা জানিয়েছেন শ্রীলেখা মিত্রকে ‘ঝুমা বৌদি’র চরিত্র থেকে বাদ দেওয়ার কারণ তাঁর ওজন। 36-24-36 চেহারার প্রয়োজন ছিল বটে কিন্তু সেই তুলনায় শ্রীলেখা নাকি একটু বেশিই মোটা। তাছাড়া শ্রীলেখাও নাকি ওয়েট লুজ করতে রাজি হয়নি অগত্যা খোয়াতে হয়েছে অফার।







তবে সম্প্রতি নায়িকার মুখে শোনা গেল অন্য বুলি। এক প্রতিবেদনে অভিনেত্রী জানান, ‘লুক টেস্টে ওরা আমায় একটা মশারির মতো পাতলা ফিনফিনে শাড়ি পরতে দিয়েছিল। এমন নোংরা শো আমি কেন করতে যাব? গোটা ইন্ডাস্ট্রি জানে আমি চিরকালই একটু ওভারওয়েট। সেটা তো ওরা জেনেই আমার কাছে অফারটা নিয়ে আসে। তার ওপর ওদের বাঙালি বৌদি চাই না ভোজপুরি বৌদি চাই সে ব্যাপারেও সচেতন হওয়া উচিত ছিল। ওজনের বাহানা দিয়ে এ কথাটা কেন বলছে ওরা জানি না।’







তবে টলিপাড়ায় কানপাতলে শোনা যাচ্ছে, ‘দুপুর ঠকুরপো’র স্পুফ বা ব্যাঙ্গাত্মক ভার্সন বানাতে চলেছেন শ্রীলেখা মিত্র। তবে সেটা রাগের বসে কিনা তিনিই ভালো বলতে পারবেন।

সূত্র: কলকাতা ২৪x৭