প্রতিটি প্রেমই ছিল আমার কাছে প্রথম প্রেম : সোহানা সাবা

আমি নিজেকে শতভাগ প্রেমিক নারী বলে মনে করি। আমি জানি না আমাদের সমাজ ব্যবস্থা বা মানসিকতা এমন কেন, এখানে প্রেম নিয়ে কোনও কথা বলা যেন পাপ! প্রকাশ্যে ইভ টিজিং করলে সেটার প্রতিবাদ করতে কেউ এগোবে না কিন্তু প্রকাশ্যে প্রেম করলে সবাই ঠিকই তেড়ে আসে।
এদেশের এ এক অদ্ভুত রীতি। আপনি কাকে ভালোবাসবেন বা কার সঙ্গে জীবনযাপন করবেন সেটা ফ্যামিলি ঠিক করে দেয়। আপনি নিজে সেটা ঠিক করলে সবার চোখে আপনি বেয়াদব! আশার কথা হলো- এই রীতি ধীরে ধীরে বদলাচ্ছে।

বলছিলাম আমার প্রেম-জীবনের কথা। অদ্ভুতভাবে আমি খুব ছোট থেকেই অসংখ্যবার প্রেমে পড়েছি; যেগুলোর আয়ুষ্কাল ছিলো বড়জোর ৭দিন! যার সবগুলোই ছিল একতরফা। আর প্রেমগুলো একদম ’আমি তো প্রেমে পড়িনি/ প্রেম আমার ওপরে পড়েছে’ টাইপ!

যাই হোক, স্কুলের শেষের দিকে রনির (ছদ্মনাম) সঙ্গে প্রেম হয় আমার। বয়সে আমার থেকে সে মিনিমাম ১০ বছরের বড় ছিলো! এটা একতরফা না, সেও আমার প্রেমে হুড়মুড় করে পড়লো। প্রথম ডেট করার দিন বাসায় ধরা খেলাম। কারণ আমি লুকিয়ে কিছু করতে শিখিনি। তাই প্রথম লুকানো ডেটিংয়েই একেবারে কট-বিহাইন্ড! এরপর কোনোভাবে এক বছর গেল। তারপর ব্রেকআপ।

সেই কষ্ট কাটাতে প্রেম শুরু হলো মিডিয়ার এক পরিচিত মুখ অভিষেকের (ছদ্মনাম) সঙ্গে। আবার ফ্যামিলি থেকে বাধা। দেড় বছর পর সেটাও ব্রেকআপ! এরপর মুরাদের (নির্মাতা মুরাদ পারভেজ) সঙ্গে পরিচয়। টানা নয় মাস আমাকে জ্বালাতন করার পর মনে হলো- বেচারা দেবদাস, হ্যাঁ বলে দিই। এই ’হ্যাঁ’ বলার তিন মাসের মধ্যেই বিয়ে করার প্রস্তাব! আমিও তালে তালে বিয়ে করে ফেললাম। জীবনের এত বড় একটা সিদ্ধান্ত নিলাম হাসতে-খেলতে, এখন ভাবলেও হাসি পায়।

মনে পড়ে প্রতিবারই আমি খুব সিরিয়াসলি প্রত্যেকের প্রেমে পড়েছি। প্রেমের প্রতিটি মুহূর্ত আমি উপভোগ করেছি। কেঁদেছি, হেসেছি। জীবনের অনেক চড়াই-উতরাই পেরিয়ে আজও আমি একই গতিতে সিরিয়াসলি মানুষের প্রেমে পড়ে যাই। এখনও সেই প্রেমের দায়ে কষ্ট, আঘাত, সুখ আর ভালোবাসার উষ্ণতা উপভোগ করি নিয়মিত।

এসবের জন্য আমার কোনও দুঃখ নেই, লজ্জাও নেই। আমার কাছে প্রেমে পড়ার মুহূর্তটাকে বরাবরই মনে হয় বৃষ্টি ভেজা মাটির গন্ধের মতো। শুকনো মাটিতে বৃষ্টি পড়লে যে গন্ধটা ছড়ায়, প্রেমে পড়লে ঠিক তেমন একটা প্রাণ জুড়ানো গন্ধ পাই আমি।

আর যখন প্রেমটা ভেঙে যায়, প্রতিবারই মনে হয় নদীর পাড় থেকে আমার হৃদয়ের টুকরোটা বুঝি ভেঙে পড়লো ঝুপ করে। এত কষ্ট হয়, বুকটাই ছিঁড়ে যায়। কিন্তু সেই কষ্ট থেকেও আমি খানিক আনন্দ খুঁজে পাই। কারণ প্রতিটি বিরহ-বিচ্ছেদ আমাকে নতুন সাবা করে গড়ে তোলে।

আমি ফের উঠে দাঁড়াই। ফের প্রেমে পড়ার অপেক্ষায় থাকি। প্রতিটি প্রেম আমার কাছে প্রথম প্রেম। আমার গোটা জীবনের বড় অংশ জুড়ে আছে প্রেম। প্রেমে না পড়লে নতুন করে স্বপ্ন দেখা, জীবনের নতুন মানে খুঁজে পাওয়া যায় না। অন্তত প্রেমহীন জীবন আমি মানি না।

এই যে, সম্প্রতি আমি একটা প্রেমে ডুবে আছি (তার ছদ্মনামও দিতে চাই না, মায়া লাগে)। নতুন প্রেমের স্বাদ মনে লেগে আছে বলেই এত প্রেমময় কথা লিখতে পারছি। ভাবতে পারছি, লাইফ ইজ বিউটিফুল। প্রেমময় প্রতিটি মানুষের প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা।

Comments

comments